ভিক্টোরিয়া হাউস সভায় সরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিতশাহ সাথে সাক্ষাতের আবেদন অখিল ভারত হিন্দু মহাসভা রাজ্য প্রতিনিধি মণ্ডলের

নিজস্ব সংবাদদাতা :-  বাংলার মাটিতে ভারতের সরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিতশাহ কে সুস্বাগতম । আমরা আগামী কাল (29.11.2023) অখিল ভারত হিন্দু মহাসভার পক্ষ থেকে রাজ্য কমিটির প্রতিনিধি মন্ডল সভাপতি চন্দ্রচূড় গোস্বামীর নেতৃত্বে অমিতজির সাথে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য হলেও দেখা করতে আগ্রহী । মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিতজি, মাননীয় বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং মাননীয় রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের কাছে আমাদের অনুরোধ আমাদের প্রতিনিধি মণ্ডলকে অমিতশাহ জির সাথে দেখা করতে দেওয়া হোক। ভারতবর্ষের নাগরিক হিসেবে আমাদের কিছু দাবি সহ আবেদনপত্র নিয়ে আমরা দেখা করতে চাই । বিজেপি যে আরএসএস কে তাদের অভিভাবক মানে, সেই আরএসএস এর জন্ম কিন্ত অখিল ভারত হিন্দু মহাসভা রাজনৈতিক দল থেকেই । কাজেই আমাদের আশা আমরা রাজ্য বিজেপি এবং অমিতজির কাছ থেকে এই সহযোগিতা পাবো ।আমাদের দাবি সমূহ যা কাল পেশ করতে চলেছি সেগুলো ভারত সরকার না মেনে নিলে আগামী লোকসভা নির্বাচনে আমরা লড়াই করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছি তাতে মূলত এই দাবিগুলো নিয়েই আমরা অবতীর্ণ হতে চলেছি ।

আমাদের দাবি সমূহ :*
*১. ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত বিএসএফকে দিয়ে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে গোপাচার সম্পূর্ণ বন্ধ করতে হবে এবং গোমাতাকে রাষ্ট্রীয় প্রাণীর মর্যাদা দিতে হবে ।*

*২. আমরা মতুয়া সহ সমস্ত সনাতনী মানুষদের নিঃশর্ত নাগরিকত্ব দাবি করছি । হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন এবং সেই খ্রিস্টান ও মুসলমান সম্প্রদায় যারা এই দেশটাকে নিজের মাতৃভূমি মনে করেন তাঁরা NRC এর লাইনে দাঁড়াবেন না । আমাদের রুবি হাসপাতাল মোড়ের বিখ্যাত দুর্গা পূজার এই বছরের থিম ছিল “মতুয়া সহ সমস্ত সনাতনী মানুষদের নিঃশর্ত নাগরিকত্ব।”*

Poster Release by ABHM

*৩. আমরা চাই সকলের জন্য সংরক্ষণ। প্রান্তিক উপজাতি, SC, ST, OBC দের সংরক্ষণ থাকুক, তাতে আমাদের বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই। কিন্তু সেই সাথে কায়েস্ত, ব্রাহ্মণ বা অন্যরা তো বানের জলে ভেসে আসেনি । তাই সবাইকে সংরক্ষণের সুবিধে দিতে হবে ।

*৪. হালাল, সাত্ত্বিক বা অন্যান্য ব্যবস্থা দ্বারা মানুষের খাদ্যদ্রব্য বা জীবন জীবিকার সাথে ধর্মকে মিলিয়ে দেওয়া বা ধর্মীয় জিগির তৈরি করা যাবেনা । আমাদের অখিল ভারত হিন্দু মহাসভার বিকল্প অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ও “Food For Humanity” কে সহযোগিতা ও স্বীকৃতি দিতে হবে ।

*৫. নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর সমস্ত ফাইলগুলি পাবলিক ডোমেনে আনতে হবে এবং নীলগঞ্জ সেনা ছাউনিতে ১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দের ২৫সে সেপ্টেম্বর রাতে দশ হাজার আজাদহিন্দ সেনাবাহিনীকে যে নৃশংস ভাবে হত্যা করা হয়েছে সেই ঘটনাকে পাঠ্য বইয়ের সিলেবাসে আনতে হবে (এই দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে অখিল ভারত হিন্দু মহাসভা আন্দোলন করে চলেছে) ।*

*৬. আগামী লোকসভা নির্বাচনে কোন রাজনৈতিক দল যেন কোন টিপছাপ প্রার্থী না দেয় । প্রার্থীকে অন্তত একটু পড়তে বা লিখতে জানতেই হবে । যে কোনো রাজনৈতিক দলের সম্পূর্ণ নিরক্ষর কোন ব্যক্তি প্রার্থী হতে আগ্রহী হলে অখিল ভারত হিন্দু মহাসভা নিজের খরচে বাংলার হিন্দু মহাসভার অফিসে তাদের লেখাপড়া শেখাবে। কারণ আমাদের দাবি “A Minimum Level Of Education Should Be Must For The Election Candidates.”*

Leave a Comment